Tips & tricks

কাঁচা আমের জুস রেসিপি

কাঁচা আমের জুস রেসিপি ।কাঁচা আম নামটি শুনলেই জিভে জল এসে যায়। আমরা অনেকেই জানিনা এই কাঁচা আম দিয়ে বিভিন্ন রকমের জুস তৈরি করা যায়। আমরা যারা গ্রামে বা শহরে থাকি তারা সব সময় জানি কাঁচা আম আচার কিংবা বিভিন্ন ভাবে খাওয়া হয়। কিন্তু কাঁচা আমের জুস! কথা শুনলে কেমন যেন লাগে।

কথাটি সত্য আজকে আমরা আপনাদের বিভিন্ন রকমের কাঁচা আমের জুস রেসিপি করার নিয়ম গুলো শেয়ার করবো। কাঁচা আম দিয়ে মূলত কয় ধরনের জুস তৈরি করা যায় এবং এই জুস তৈরি করতে কি কি উপকরণ লাগে সে সকল বিস্তারিত বিষয় আপনাদের সাথে আলোচনা করব। যদি আপনি কাঁচা আমের জুস রেসিপি গুলো শিখতে চান তাহলে আমাদের এই পোস্ট টি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

>> বাংলাদেশের যে রেগুলার আম পাওয়া যায় পরিমাণমতো আম নিতে হবে।

>>আম সংগ্রহ করার পর তা খোসা ছাড়াতে হবে। খোসা ছাড়ানোর পর আমগুলো কুচি কুচি করে কেটে পানিতে ভালভাবে ধৌত করে নিতে হবে।

>>তারপর ব্লেন্ডারে আমের কুচি পরিমাণমতো চিনি হালকা লবন এবং পুদিনার পাতা দিতে হবে।

>>তারপর হালকা পানি দিয়ে ব্লেন্ড করতে হবে।

>>মনে রাখতে হবে প্রথমে বেশি পানি দেওয়া যাবে না তাহলে ব্লেন্ডারে আম গুলো ভালোভাবে জুস হবে না।

>>অল্প পরিমাণ পানি দিয়ে ব্লাডিং করে তারপর বেশি করে পানি দিতে হবে।

>>ব্লেন্ডিং শেষে আপনি চাইলে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে রস বের করতে পারেন অথবা না সেকে আপনি সে সুস্বাদু কাঁচা আমের জুস টি পরিবেশন করতে পারেন।

কাঁচা আমের জুস ছাড়াও আজকে আপনাদের আরও একটি নতুন শরবত তৈরির রেসিপি শেয়ার করব। আপনারা চাইলে লেবু দিয়ে চমৎকার একটি শরবত তৈরি করতে পারেন। এই শরবত তৈরি করতে হলে আপনাকে যা যা ব্যবস্থা করতে হবে। লেবু চিনি লবণ পুদিনা পাতা।

নতুন ৩টি আমের আচারের রেসিপি

 

>>প্রথমে একটি গ্লাসে লেবুটি কেটে রস বের করতে হবে।

>>রস বের করার পর সেখানে পরিমাণমতো চিনি এবং হালকা লবন দিতে হবে।

>>তারপর পরিমাণমতো পুদিনা পাতা দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করতে হবে।

>>ব্লেন্ড করা শেষে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে জুসের শ্বাস গুলো আলাদা করে গ্লাসে ঢালতে হবে।

>>সবশেষে আপনি আপনার ইচ্ছে মত শর্বতটি পরিবেশন করতে পারবেন।

যদি আমাদের এই জুস তৈরি রেসিপি গুলো আপনার কাছে ভাল লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই এই পোস্টটি সবার মাঝে শেয়ার করে দিবেন। কারণ আপনার একটি শেয়ার এর কারনে অনেক মানুষ এই রেসিপিটি শিখতে পারবে।