health tips

কাচা ছোলার উপকারিতা ও অপকারিতা ব্যাখ্যা

কাচা ছোলার উপকারিতা ও অপকারিতা ব্যাখ্যা

কাঁচা ছোলা খুবই উপাদেয় একটি খাদ্য। এর গুনাগুন অপরিসীম। শরীরের ওজন বাড়াতে কাঁচা ছোলা খাওয়া হয়। কাঁচা ছোলা খেলে শরীরের ওজন বারা সহ আরও বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা পাওয়া যায়। কাঁচা ছোলা খেলে কি কি ধরনের উপকারিতা এবং অপকারিতা পাওয়া যায় সে সকল বিস্তারিত তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যদি সোলার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান তাহলে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়বেন। তাহলে আপনি এ সম্পর্কে একটি সুন্দর ধারণা পেয়ে যাবেন। ছোলার উপকারিতা ও অপকারিতা নিচে দেওয়া হলো।

কাঁচা ছোলা খাওয়ার উপকারিতা

কাঁচা ছোলা সাধারণত অনেক গুণাগুণ সম্পন্ন একটি খাবার। কাঁচা ছোলায় প্রতি 150 গ্রাম এ রয়েছে 20 গ্রামের রয়েছে আমি 70 গ্রাম ফ্যাট 250 মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম ভিটামিন এ আছে। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন b1 b2।

এগুলো ছাড়াও চলায় পর্যাপ্ত রয়েছে ভিটামিন ম্যাগনেসিয়া খনিজ লবণ ও ফসফরাস। ছোলা হচ্ছে উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার। ছোলা কাঁচা ছাড়াও সেদ্ধ করে এবং রান্না করে খাওয়া যায়।

কাঁচা ছোলা খেলে  কোন কোন রোগ থেকে মুক্তি পাবেন সে সম্পর্কে কিছু ধারনা নিচে দেয়া হল:

আরো পড়ুন: কালোজিরা খাওয়ার নিয়ম ও এর উপকারিতা

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ কাঁচা ছোলা

একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে অল্প বয়সী নারীরা খুব বেশি পরিমাণে ফলিক এসিড যুক্ত খাবার খেয়ে থাকেন। তাদের হাইপার টেশন এর প্রবণতা কমে যায়।এ সমস্যা দূর করতে ছোলা ভালো কাজ করে ছোলায় অনেক ভালো পরিমাণ ফলিক এসিড থাকে তাই ছোলা খেলে রক্তচাপ এর নিয়ন্ত্রণ রাখা সহজ হয় এছাড়াও ছোলা বয়সন্ধি পরবর্তীকালে মেয়েদের হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে।

ক্যানসার রোধে ছোলা

মেয়েদের বেশিরভাগই কোলন ক্যান্সার এবং রেকটাম ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে। এই ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে বালের ছোড়া কারণ ছোলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফলিক অ্যাসিড।এই ফলিক অ্যাসিড রক্তে এলার্জির পরিমাণ কমিয়ে অ্যাজমার প্রকোপ অত্ত অনেকটা কমিয়ে আনতে সাহায্য করে। তার জন্য নিয়মিত ছোলা খেলে স্বাস্থ্য ভালো থাকে।

রক্ত চলাচল

যদি প্রতিদিন দুই-তিনটা ছোলা সিম তার সাথে মটর খায় তাদের পায়ের আর্টারিতে রক্ত চলাচল বেড়ে যায়।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে ছোলা

যাদের কোষ্ঠকাঠিন্য রয়েছে তারা যদি নিয়মিত কাঁচা ছোলা খায় তাহলে তাদের কোষ্ঠকাঠিন্য সম্পূর্ণরূপে ঠিক হয়ে যাবে। এর কারণ হচ্ছে ছোলাতে রয়েছে খাদ্য-আঁশ। যা হজমে অনেক সাহায্য করে এবং পায়খানা অনেক নরম হয়।

কোলেস্টেরল

যাদের শরীরে পর্যাপ্ত কোলেস্টরেল রয়েছে তারা যদি নিয়মিত ছোলা খাই তাহলে তাদের কোলেস্টরলের পরিমাণ অনেক কমে যাবে। ছোলাতে ভারতের বেশিরভাগ পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে। যা মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকর নয়।

ডায়াবেটিস এর উপকারিতা ছোলা

যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তারা যদি প্রতিদিন 100 গ্রাম ছোলায় তাহলে তাদের ডায়াবেটিস অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। কারণ হচ্ছে প্রতি 100 গ্রাম ছোলায় রয়েছে 20 গ্রাম আমিষ এবং প্রোটিন ও 70 গ্রাম শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট ফ্যাট। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য শর্করা খুব ভালো একটি ভিটামিন।প্রতি ১০০ গ্রাম ছোলায় ক্যালসিয়াম আছে প্রায় ২০০ মিলিগ্রাম, লৌহ ১১  মিলিগ্রাম এবং  ভিটামিন এ ২০০  মাইক্রোগ্রাম। তাছাড়া  আছে ভিটামিন বি-১, বি-২, ফসফরাস এবং  ম্যাগনেসিয়াম। যা সব আমাদের  সবটুকু শরীরের উপকারে আসে।

মেরুদণ্ডের ব্যথা দূর করতে সোলার ভূমিকা

যাদের মেরুদণ্ডের ব্যথা রয়েছে তারা যদি নিয়মিত ছোলা খাই তাহলে তাদের মেরুদণ্ডের ব্যথা আর থাকবে না। কারণ ছোলাতে আছে ভিটামিন বি পর্যাপ্ত পরিমাণে।এই ভিটামিন বি হলো মেরুদণ্ডের ব্যথা কমানোর সাহায্য করে এবং স্নায়ু দুর্বলতা কমায়।যার ফলে যাদের মেরুদন্ডে ব্যথা এবং স্নায়ু দুর্বলতা রয়েছে তারা প্রতিদিন সকালে ছোলা খেতে পারেন।

কাঁচা ছোলার উপকারিতা

কাঁচা ছোলার উপকারিতা পাশাপাশি এর কিছু উপকারিতা রয়েছে। যেমন যারা কাঁচা কোন কিছুর গন্ধ সহ্য করতে পারে না তাদের কাঁচা ছোলা খেলে বমি হতে পারে।প্রতিদিন সকালে অতিরিক্ত কাঁচা ছোলা খাওয়া যাবে না কারণ কাঁচা ছোলা হজম করতে শরীরের অনেক ক্যালোরি খরচ হয়। যার ফলে পর্যাপ্ত পরিমাণে কাঁচা ছোলা খেলে আপনার পেটের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে। তার জন্য পরিমিত পরিমাণে কাঁচা ছোলা খাবেন এবং খুব ভালোভাবে চিবিয়ে খাবেন।