Love Tips

ছেলে পটানোর 3 টি জাদুকরী কৌশল

ছেলে পটানোর 3 টি জাদুকরী কৌশল

ছেলে পটানোর 3 টি জাদুকরী কৌশল ,ছেলে পটানোর জাদুকরী কৌশল কথাটি শুনতে খুব অবাক মনে হচ্ছে। ছেলেদের আবার পটাতে হয় নাকি। তাড়াতে এমনিতেই পটে থাকে। কিন্তু ছেলেদের মধ্যে অনেক ছেলে আছে যারা একটু আলাদা। তারা মেয়েদের সাথে কথা কম বলে মেলামেশা কম করে।সে সকল ছেলেদের কিভাবে পটানো যায় সে সম্পর্কে আজকে আপনাদের সামনে তিনটি জাদুকরি কৌশল উল্লেখ করব। যেসকল বোনেরা ছেলে পটাবেন ভাবছেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। আশাকরি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

অনেক মেয়ে আছে অনেক ছেলেকে পছন্দ করে। অনেক ছেলেই অনেক মেয়ের ক্রাশ হতে পারে। সে জায়গা থেকেই সেসকল মেয়েরা তাদের ক্রাশ কে কিভাবে পটাবো সে সম্পর্কে কিছু ছেলে পটানোর জাদু করি কৌশল আজকে বলবো।

এখন আপনারা বলতে পারেন ভাই ছেলেরা তো কোন লজ্জা পায় না। তাহলে ছেলেদের পটানোর জাদুকরী কৌশলের কি প্রয়োজন।আমি তাদের উদ্দেশ্যে একটি কথা বলব হাতের পাঁচটা আঙুল যেমন সমান নয়। সব ছেলেরাই তেমন একনা। অনেক ছেলে আছে যারা মেয়েদের প্রতি তাদের কোনো আকর্ষণ নেই। আকর্ষণ নেই বলতে তাদের যে মেয়ের দরকার নেই সেটা নয়। অনেক ছেলে আছে বিয়ের আগে তারা কোন সম্পর্কে যেতে চায়না। এরকম ছেলেদের উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে।

একটি মেয়েকে পটাতে যতটা কঠিন। ঠিক ততটাই সহজ একটি ছেলেকে পটাতে। কারণ একটি মেয়ের পেছনে অনেকগুলো ছেলে থাকে। তাই তাদের ভাব অনেক বেড়ে যায়। তখন তার দোটানার মধ্যে পড়ে যায় কার সাথে প্রেম করবে। কিন্তু একটি ছেলেকে যদি একটি মেয়ে পছন্দ করে তাহলে মেয়েটির যা করলে ছেলেটিকে খুব সহজেই পটাতে পারবে। সেসকল মেয়েদের জন্য ছেলে পটানোর সহজ উপায় গুলো আলোচনা করা হলো।

ছেলেদের পটানোর সেরা উপায়

১. আপনি যে ছেলেটিকে পছন্দ করেন।আপনি যেভাবে হোক সে ছেলেটিকে বোঝাতে হবে যে আপনি তাকে পছন্দ করেন। তারপর কিছুদিন তার আশে পাশে থাকার চেষ্টা করতে হবে। যেন সে দিনে অন্তত দুইবার আপনাকে দেখে। যখন সে অনেকদিন খেয়াল করবে যে আপনি তার আশেপাশে থাকছেন তখন ছেলেটি মনে করবে যে আপনি তাকে কিছু একটা বলতে চাচ্ছেন। তখন ছেলের রিলেটিভ যেমন ফ্রেন্ড কিংবা কাজিন ভাবি এরকম কারো সাথে আপনার যোগাযোগ করতে হবে।

২. তারপর তাদের সাথে আপনার ভালো একটা সম্পর্ক করতে হবে যাতে তারা আপনার উপর একটা বিশ্বাস অর্জন করে। যখন আপনি ওই ছেলেটির রিলেটিভ এর সাথে ভাল সম্পর্ক তৈরী করবেন। তখন আস্তে আস্তে ওই ছেলেটির কানে আপনার প্রশংসা অটোমেটিকলি চলে যাবে। তখন সে আপনাকে নিয়ে ভাবতে শুরু করবে। তখন বলবে কে এই মেয়েটি যে আমার ফ্যামিলির কাছে এত প্রিয়। সে হয়তো আসলে ভালো একটি মেয়ে।

৩. তারপর বেশ কিছুদিন যাওয়ার পর আপনি তার ফেসবুক আইডি কিংবা ইমো আইডি তাহার যে রিলেটিভ আছে তাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করবেন। তারপর ফেসবুক কিংবা মেসেঞ্জারে কথা বলা শুরু করবেন। তখন যদি প্রশ্ন করে আপনাকে তখন আপনি যদি থাকে সরাসরি উত্তর দিয়ে দেন তখন সে কিছু মনে করবে না। কারণ আপনার সম্পর্কে তার ফ্যামিলির কাছ থেকে সে তো আগেই শুনেছো। তারপর আস্তে আস্তে বন্ধুত্ব তৈরি করবেন। তারপর তার মোবাইল নাম্বার নিবেন। এভাবে অন্তত এক মাস তার সাথে ভালো একটা গুড রিলেশন তৈরি করবেন। তারপর মিট করার জন্য অফার করবেন। তারপর যখন আপনাদের দেখা হবে তখন তার সাথে কথা বলতে হবে। যখন তার সাথে আপনি কথা বলবেন তখন আপনি বুঝতে পারবেন যে ছেলেটি আসলে কি চাচ্ছে।

সৌন্দর্য দিয়েঃ ছেলে পটানো

তখন আপনি তাকে আপনার কথা দ্বারা বোঝাতে চেষ্টা করবেন যে আপনি তাকে পছন্দ করেন।এভাবে যখন তার সাথে বেশ কিছুদিন পর পর দেখা করতে থাকবেন তখন ছেলেটির মনে আপনার একটি ভালোবাসার সৃষ্টি হয়ে যাবে। যখন দেখবেন ছেলেটি আপনার সাথে কথা বলার জন্য সব সময় আপনাকে সময় দিচ্ছে। আপনাকে রেগুলার ফোন করতেছে। কিংবা একদিন কথা না বললে তার অনেক খারাপ লাগে। তখন আপনি আপনার মনের কথাটি তাকে জানিয়ে জানিয়ে দিবেন।

অনেক মেয়েরা আছে যারা সম্পর্ক করে শারীরিক রিলেশন এর জন্য। সবাই না বাট কিছু কিছু মেয়ে আছে। আমার অনেক মেয়ে আছে যারা রিলেশন করে বিয়ে করার জন্য। প্রেম হচ্ছে একটি পবিত্র সম্পর্ক।এই সম্পর্ক ব্যবহার করে কেউ খারাপ কাজে লিপ্ত হবে না।

আমাদের এই পোস্ট টি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করবেন আর যদি খারাপ লেগে থাকে তাহলে আপনারা জানাবেন। তাহলে আমরা আরো ভালো কিছু দেওয়ার জন্য চেষ্টা করব।

আরো পড়ুন:

অনামিকা ঐশী নতুন ভিডিও (টিকটক থেকে সিনেমার নায়িকা)