health tips

মোটা হওয়ার সহজ উপায় কি-মোটা হওয়ার ২০ টি উপায় জেনে নিন

মোটা হওয়ার সহজ উপায় কি, আমাদের গ্রামে ক্লাব ভাই এবং বোনেরা যারা আছে তাদের জন্য আজকে কিভাবে তারা প্রাকৃতিক উপায়ে মোটা হওয়ার সহজ উপায় পারবে সে সম্পর্কে কিছু টিপস আপনাদের সামনে তুলে ধরব। আশা করি এই টিপস গুলো আপনাদের অনেক কাজে লাগবে।মোটা হওয়ার সহজ উপায় কি-মোটা হওয়ার ২০ টি উপায় নিচে জেনে নিন।

বিষয়বস্তু

  •   প্রাকৃতিক ঔষধ মোটা হওয়ার
  •  সহজ  ঘরোয়া উপায় মোটা হওয়ার
  • মোটা হওয়ার জন্য খাদ্য তালিকা

মোটা হওয়ার সহজ উপায় ও প্রাকৃতিক ঔষধ

অনেকে আছে যারা অনেক রোগা পাতলা। তাদের মাথায় সবসময় একটা চিন্তা আসে যে কিভাবে তাদের শরীরের উন্নতি ঘটানো যায়। কারন তারা সমাজের লোকজনের সাথে মিশতে অনেকটা লজ্জা বোধ করে তাদের শারীরিক ফিটনেসের কারণে। তো সে সকল ভাই-বোনদের বলব আর নয় চিন্তা।আপনাদের এই সমস্যা থেকে দূর করতে আমরা আপনাদের খুব গুরুত্বপূর্ণ কিছু সমাধান দিয়ে দেবো। যা মেনে চললে আপনার এক থেকে দুই মাসের মধ্যে অনেকটা পরিবর্তন লক্ষ্য করবেন।

যে সকল ভাই ও বোনেরা মোটা হতে চান তাদের উদ্দেশ্যে ছোট করে একটু কথা বলব।কথাটি হচ্ছে আমরা অনেকেই আমাদের শরীর মোটা তাজা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ওষুধ সেবন করে থাকি। আপনাদের কাছে অনুরোধ আপনারা এই সমস্ত বিভিন্ন ধরনের যে ওষুধগুলো বাজারে পাওয়া যায় এগুলো থেকে বিরত থাকুন। কারণ এই ওষুধগুলো আপনাকে সাময়িকভাবে আপনার শরীরের পরিবর্তন আনবে। কিন্তু এর কার্যকারিতা শেষ হয়ে গেলে আপনি যেরকম ছিলাম সেরকমই হয়ে যাবেন। কিন্তু এর মাঝে একটি কথা থেকে যায়। আপনি যে ওষুধগুলো সেবন করলেন এগুলো এক ধরনের সাইডিফেক আপনার শরীরে পড়বে। যেমন আপনার লিভার অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। কিডনিতে এর প্রভাব পড়তে পারে। তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ যে আপনারা এই সমস্ত দুই নম্বর ওষুধ সেবন করবেন না।

মোটা হওয়ার সহজ উপায় ঘরোয়া পদ্ধতিতে

মোটা হওয়ার সহজ উপায়

প্রাকৃতিক উপায়ে মোটা হওয়ার জন্য যা যা করবেন। প্রথমে আপনি প্রতিদিন ভোরে উঠবেন কারণ সকালের বাতাসের অনেক ধরনের ভিটামিন থাকে যা আপনার শরীরের জন্য খুবই উপকারী। আগের দিনের মুরুব্বিরা বলে ভোর সকালে যারা ওঠে তাদের নাকি রোগবালাই কম হয়। এই কথাটির অবশ্যই যুক্তি আছে কারণ আপনি যদি অনেক ভোরে উঠেন তাহলে আপনার কখনো রোগব্যাধি হবে না হলেও খুব কম এমনকি আপনার শরীর স্বাস্থ্য অনেক ভালো থাকবে।তারপর আপনি বেশি বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার খাবেন।

যেমন ভাতের সাথে বেশি করে মশারির ডাল খাবেন। মার সহ ভাত খাবেন এবং বিভিন্ন ধরনের সবজি দিয়ে সপ্তাহে তিন দিন সকালে খিচুড়ি খাবেন খিচুড়ি হবে নরম। রুটি খাবেন না। মুরগির কলিজা কিংবা গরুর কলিজা বোনা খাবেন।প্রতিদিন অন্তত 100 গ্রাম বাদাম খাওয়ার অভ্যাস করবেন। কারণ বাদাম আছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ফ্যাট আপনার শরীর মোটা হওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সাহায্য করবে। গরুর গোশত খেলে তার সাথে গরুর চর্বি খাওয়ার চেষ্টা করবেন। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস করে দুধ খাবেন। দুধ এমন একটি খাবার যার মধ্যে সব ধরনের ভিটামিন মিনারেল রয়েছে। যাবনা শরীর গঠনে অনেক সাহায্য করবে।

এখন আমরা কথা বলবো শরীরচর্চা নিয়ে। আপনি প্রতিদিন ভোর সকালে উঠে অন্তত এক কিলোমিটার রাস্তা দৌড়ানো হাঁটার অভ্যাস করবেন।এতে আপনার শরীরের রক্ত চালিকা শক্তি বৃদ্ধি পাবে এবং শরীরের সর্বস্তরে ভিটামিন পৌঁছে যাবে এবং হার্ড অনেক ভালো থাকবে। গোসলের সময় যদি আপনি পুকুরে কিংবা নদীতে গোসল দেন তাহলে সেখানে সাঁতার কাটা চেষ্টা করবেন। কারণ সাঁতার কাটা শরীরের জন্য খুব ভালো একটি ব্যাগ।আর যদি আপনি অতি দ্রুত মোটা হতে চান তাহলে আপনাকে আমি আমার ব্যক্তিগত দিক থেকে একটি টিপস দিতে পারি।সেটা হচ্ছে আপনি বিভিন্ন ধরনের জিম সেন্টারে যে ট্রেইনার থাকে তাদের সাথে যোগাযোগ করে দেশের বাইরে থেকে তারা অনেক ধরনের খুব ভালো মানের সাপ্লিমেন্ট ইমপোর্ট করে থাকে।সে সাপ্লিমেন্ট যদি আপনি ব্যবহার করেন এবং হালকা শরীর চর্চা করেন তাহলে আপনার স্বাস্থ্যের অনেক পরিবর্তন হবে।

মোটা হওয়ার জন্য খাদ্য তালিকা

স্টেপ 1. আপনার যদি সব ড্রিংস বা ফ্যাটযুক্ত খাবার বেশি বেশি খান তাহলে আপনার শরীরের উন্নতি করবে খুব তাড়াতাড়ি। কারণ এই সমস্ত খাবারে প্রচুর পরিমাণে ইনসুলিন থাকে। ইনসুলিন হরমোন তৈরি করে যার শরীরে কার্বোহাইড্রেট প্রোটিন ও ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে।

2. দ্রুত মোটা হওয়ার কার্যকরী উপায় হচ্ছে আপনাকে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং দিনে অন্তত তিন ঘণ্টা ঘুম পারতে হবে। রাতে দশটার মধ্যে বিছানা চলে যেতে হবে।কারণ আপনি যদি ঠিকমত ঘুম না পারেন তাহলে আপনার শরীরের কোন পুষ্টিকর খাবার কাজ করবেনা।

স্টেপ ২: প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে খাবেন। তাহলে আপনি যে খাবারটা খাবেন সেটি আপনার শরীরে কাজ করবে।

 ৪: আপনাকে প্রচুর পরিমাণে এনার্জি ফুড খেতে হবে। জুতা এনার্জি পাটনা খান তাহলে আপনার শরীরে শক্তি আসবে না।

 ৫: কখনো টেনশন করবেন না। সকালে নিয়মিত ব্যায়াম করুন কারণ ব্যায়াম করলে আপনার ক্ষুধা লাগবে আর খুধা লাগলে আপনি বেশি বেশি খাবেন আর বেশি বেশি খেলে আপনার শরীর খুব দ্রুত মোটাতাজা হবে।

আপনারা যদি এই টিপসগুলো মেনে চলেন তাহলে আমি আশা করি যে আপনাদের দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে আপনার  শারীরিক অবস্থা অনেক পরিবর্তন হবে। আমি জানি যে এই পোস্টগুলো অনেকেরই বোরিং লাগতে পারে কারণ এত সময় ধরে মোটা হওয়ার উপায়। অনেকেই ভাববে এরচে বরং আমি ওষুধ খেয়ে এক সপ্তাহর ভিতরে মোটা হয়ে যাব। তাদের উদ্দেশ্যে একটি কথা বলতে চাই যে জিনিস খুব তাড়াতাড়ি পাওয়া যায় সেই জিনিস হারাতে সময় লাগে না। তার জন্য একটু কষ্ট করে হলেও আপনারা এই টিপসগুলো মেনে চলুন এবং আপনাদের শরীরের পরিবর্তন আনে