History

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস ২০+টি শক্তিশালী উক্তি এস এম এস বাণী

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস ২০+টি শক্তিশালী উক্তি এস এম এস বাণী,26 শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস। হাজার 1971 সালের 25 মার্চ রাতে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান জনগণ আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু করে। এ রাতকে বলা হয় কালো রাত। বর্তমান সময়ের বাংলাদেশের যে তরুণ সমাজ রয়েছে তারা অনেকেই বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কে তেমন কোন ধারণা নেই। শুধু এতোটুকু জানি 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস। কিন্তু এই দিনটির যে ইতিহাস সে সম্পর্কে জানার তেমন কোন আগ্রহ নেই।

আজকে আমরা আপনাদের 26 শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস এর ইতিহাস এবং এই বিষয় সর্ম্পকে অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তির কিছু শক্তিশালী উক্তি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যদি আপনারা 26 শে মার্চের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমাদের এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন। কারণ আজকে আমরা এ বিষয়ে বিস্তারিত সুন্দর একটি আলোচনা আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

২১ শে ফেব্রুয়ারি দেয়ালিকা,দেয়ালচিত্র ও আলপনা ডিজাইন,পিক

 ২৬শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস এর ইতিহাস

26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের প্রেক্ষাপট অনুযায়ী হাজার 1971 সালের 25 শে মার্চ তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তান সরকার গভীর রাতে পূর্ব পাকিস্তানের নিরীহ জনগণের ওপর হামলা চালায়। এই রাতটিকে কাল রাত হিসেবে গণ্য করা হয়। কারণ এই রাতেই পশ্চিম পাকিস্তানীরা নিশংস ভাবে গণহত্যা চালায়। অপারেশন সার্চলাইট  ১৯৭১ সালের 25 মার্চ থেকে শুরু হওয়া পাকিস্তানি সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত অপরিকল্পিত গণহত্যা চালায় যার মাধ্যমে তারা  ১৯৭১ সালের মার্চে পূর্ববর্তী সময়ে সংঘটিত বাঙালি জাতীয়তাবাদে আন্দোলনকে দমন করতে চেয়েছিল।

কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি। এই অপারেশন সার্চলাইট এর উদ্দেশ্য ছিল 26 শে মার্চের মধ্যে সকল বড় বড় শহর এবং বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও সামরিক বিরোধীদের এক মাসের ভিতরে চিহ্নিত করে সেগুলো দখলে নেওয়ার। কিন্তু তাদের উদ্দেশ্য এবং আশা পূরণ হতে দেয়নি বাঙালির দামাল ছেলেরা। দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতা লাভ করে এবং বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে।

স্বাধীনতা দিবস উক্তি এস এম এস বাণী

স্বাধীনতা দিবস উক্তি এস এম এস বাণী

  • এটাই হয়ত আমার শেষ বার্তা, আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন। আমি বাংলাদেশের মানুষকে আহ্বান জানাই, আপনারা যেখানেই থাকুন, আপনাদের সর্বস্ব দিয়ে দখলদার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে শেষ পর্যন্ত প্রতিরোধ চালিয়ে যান। বাংলাদেশের মাটি থেকে সর্বশেষ পাকিস্তানি সৈন্যটিকে উত্খাত করা এবং চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের আগ পর্যন্ত আপনাদের যুদ্ধ অব্যাহত থাকুক। – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
  •  স্বাধীনতা ছাড়া একটি জীবন মানে আত্মা ছাড়া শরীর। – কাহলিল জিবরান
  •  এই স্বাধীনতা তখনি আমার কাছে প্রকৃত স্বাধীনতা হয়ে উঠবে, যেদিন বাংলার কৃষক-মজুর ও দুঃখী মানুষের সকল দুঃখের অবসান হবে – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
  •  একবার রাজাকার মানে চিরকাল রাজাকার; কিন্তু একবার মুক্তিযোদ্ধা মানে চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নয়। – হুমায়ূন আজাদ
  • আমি আমার নিজের দেশ নিয়ে অসম্ভব রকম আশাবাদী৷ আমাকে যদি একশোবার জন্মাবার সুযোগ দেয়া হয় আমি একশোবার এই দেশেই জন্মাতে চাইব৷ এই দেশের বৃষ্টিতে ভিজতে চাইব৷ এই দেশের বাঁশবাগানে জোছনা দেখতে চাইব- হুমায়ূন আহমেদ
  • তোমার বুকের মধ্যে আমাকে লুকিয়ে রাখো আমি এই মাটি ছেড়ে, মাটির সান্নিধ্য ছেড়ে, আকাশের আত্মীয়তা ছেড়ে, চাই না কোথাও যেতে, কোথাও যেতে – মহাদেব সাহা
  •  বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি, তাই আমি পৃথিবীর রূপ খুঁজিতে যাই না আর – জীবনানন্দ দাশ
  • যে মাঠ থেকে এসেছিল স্বাধীনতার ডাক, সেই মাঠে আজ বসে নেশার হাট – রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ
  •  স্বাধীনতা মানুষের প্রথম এবং মহান একটি অধিকার। – মিল্টন
  •  এখনতো চারিদিকে রুচির দুর্ভিক্ষ! একটা স্বাধীন দেশে সুচিন্তা আর সুরুচির দুর্ভিক্ষ! এই দুর্ভিক্ষের কোন ছবি হয়না। – জয়নুল আবেদিন
  •  স্বাধীনতা একটি সুযোগের নাম যার মাধ্যমে আমরা যা কখনই হতে পারার কল্পনা করতে পারিনা তা হতে পারি।- ড্যানিয়াল যে ব্রুস্টিন
  •  আমরা স্বাধীন হয়েছি তাই আমরা স্বাধীন জীবন যাপন করবো এমনটা ভাবা ঠিক নয়। আমরা আজন্ম স্বাধীন। – উইলিয়াম ফকনা
  • শৃঙ্খল ভাঙ্গার মধ্যে একধরণের পৈশাচিক স্বাধীনতা আছে। – রবার্ট ফ্রস্ট
  • স্বাধীনতা মানুষের মনের একটি খোলা জানালা, যেদিক দিয়ে মানুষের আত্মা ও মানব মর্জাদার আলো প্রবেশ। – হার্বার্ট হুভার
  •  নিজের ইচ্ছামতো বাঁচা ছাড়া স্বাধীনতার অর্থ আর কিইবা হতে পারে। – অ্যাপিকটিটাস
  • স্বাধীনতা তুমি পিতার কোমল জায়নামাজের উদার জমিন। – শামসুর রাহমান

স্বাধীনতার ঘোষণা

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ মধ্য রাতে শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন। গ্রেপ্তার হবার একটু আগে ২৫শে মার্চ রাত ১২টার পর (২৬শে মার্চের প্রথম প্রহরে) তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেন।২৬শে মার্চ বেলাল মোহাম্মদ, আবুল কাসেম সহ চট্টগ্রাম বেতার কেন্দ্রের কয়েক’জন কর্মকর্তা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা এম. এ. হান্নান প্রথম শেখ মুজিব এর স্বাধীনতার ঘোষণা পত্রটি মাইকিং করে প্রচার করেন। পরে ২৭শে মার্চ  তৎকালীন পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বাঙালি অফিসার মেজর জিয়াউর রহমান চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতা ঘোষণা করেন।