Tips & tricks

বাংলাদেশ সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি ২০২২- citizens bank PLC

বাংলাদেশ সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি ২০২২- citizens bank PLC

সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি এটি একটি বাংলাদেশের সাহিত্য শাসিত বাণিজ্যিক ব্যাংক। বাংলাদেশের 2020 সালের 15 ডিসেম্বর সিটিজেন ব্যাংক পিএলসি অনুমোদন পায়। এ ব্যাংকটিকে তফসিল ব্যাংক হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। যারা সিটিজেন্স ব্যাংক পিএলসি সম্পর্কে জানতে চান এবং এর একাউন্ট সম্পর্কে জানতে চান তারা সঠিক ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেছেন। এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়বেন। তাহলে আপনি citizen’s ব্যাংক পিএলসি সম্পর্কে বিস্তারিত একটি সুন্দর ধারণা পেয়ে যাবেন। আজকে আপনাদের এই ব্যাংকের ইতিহাস এবং তথ্যসমূহ শেয়ার করব।

আরো পড়ুন: ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিস্তারিত

আই এফ আই সি ব্যাংক হোম লোন-সম্পূর্ন তথ্য

সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি সংক্ষীপ্ত ইতিহাস

অনেক মানুষ রয়েছে যারা সিটিজেন ব্যাংক পিএলসি এর ইতিহাস সম্পর্কে জানেনা। তাদের উদ্দেশ্যে আজকে আমি আপনাদের এই ব্যাংকের ইতিহাস সম্পর্কে কিছু সংক্ষিপ্ত ধারণা দেব। citizen’s ব্যাংক বাংলাদেশের 2020 সালের 15 ডিসেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন লাভ করে। তারপর বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে সিটিজেন্স ব্যাংক পিএসসিতে তফসিলি ব্যাংক হিসেবে তালিকাভুক্ত করার নির্দেশ দেয়। তারপর এই ব্যাংকটি আগের পরিশোধিত মূলধন 500 কোটি টাকাসহ প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ করতে না পারায় বাংলাদেশ ব্যাংক সিটিজেন ব্যাংক একাধিকবার সময় বৃদ্ধির আবেদন করেছিল। তারপর এই ব্যাংকটি তাদের সকল প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ করার পর 2020 সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের 410 তম বোর্ড সভায় citizen’s ব্যাংকের চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়। এ সকল কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে citizen’s ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে দেশের ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করতে চিঠি দেয়া হয়। তারপর থেকেই কার্যক্রম শুরু করেছে।

ধরন                      বেসরকারি ব্যাংক

সদরদপ্তর           ৭৬ মতিঝিল, ঢাকা – ১০০০, বাংলাদেশ

প্রতিষ্ঠাকাল         ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০

প্রধান ব্যক্তি         তৌফিকা আফতাব (চেয়ারম্যান

সিটিজেনস ব্যাংক একাউন্ট এর কাগজপত্র

বাংলাদেশ সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি

ব্যাংক একাউন্ট খুলতে সাধারণত যা লাগে

  1. ব্যাংক প্রদত্ত অ্যাকাউন্ট ফরম।
  2. সাম্প্রতিক সময়ে তোলা নমিনির পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি।
  3. জন্মনিবন্ধন সনদ ব্যবহার করেও ব্যাংক একাউন্ট খোলা যায়। তবে সেক্ষেত্রে হিসাব পরিচালনাকারীর ছবিযুক্ত অন্য যেকোনো গ্রহণযোগ্য পরিচিতিপত্র প্রদান করতে হতে পারে।
  4. অ্যাকাউন্ট হোল্ডার ও নমিনি, উভয়ের ছবিযুক্ত পরিচয় পত্র, যেমনঃ জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স, যেকোনো একটির অনুলিপি।
  5. সাম্প্রতিক সময়ে তোলা একাউন্ট হোল্ডারের দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রংগিন ছবি (সত্যায়িত দরকার হতে পারে।

পরিশেষে একটি কথাই বলবো। সেটা হচ্ছে যদি আপনি সিটিজেনস ব্যাংক একাউন্ট করতে চান। তাহলে আপনাকে উপরিক্ত কাগজপত্রগুলো থাকতে হবে। অন্যথায় আপনি করতে পারবেন না। এই ব্যাংকটি সম্পর্কে আপনাদের যদি আরো কোন কিছু জানার থাকে তাহলে আপনারা আমাদের কমেন্ট বক্সে যোগাযোগ করবেন।