History

কোনটি দারাজে ডিজিটাল সেবা হিসেবে আছে?

কোনটি দারাজে ডিজিটাল সেবা হিসেবে আছে?

সম্মানিত পাঠক, আজকে আমরা আলোচনা করব বাংলাদেশের বহুল পরিচিত একটি ই-কমার্স সাইট নিয়ে। সাইটটির নাম হচ্ছে দারাজ। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান শীর্ষে রয়েছে দারাজ। তাদের ওয়েবসাইটে সকল ধরনের প্রোডাক্ট উচ্চমূল্যে থেকে খুব স্বল্প মূল্য পর্যন্ত পাওয়া যায়। আজকে আমরা আলোচনা করবো এই সাইটটির মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে এবং এই সাইটে কারা কারা কিভাবে বিজনেস করে সে সকল বিস্তারিত একটি তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করব।আপনারা এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়বেন তাহলে আপনারা আপনাদের কাঙ্খিত প্রশ্নের উত্তরটি পেয়ে যাবেন। কোনটি দারাজে ডিজিটাল সেবা হিসেবে আছে? নিচে দেওয়া হলো।

দারাজ দক্ষিণ এশিয়া এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার একটি লজিস্টিকস (মালামালের সরবরাহ করে এমন) কোম্পানি এবং অনলাইন মার্কেটপ্লেস। ২০১২ সালে পাকিস্তানে দারাজ প্রতিষ্ঠিত হয়।বাংলাদেশ, মায়ানমার, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান এবং নেপালে তাদের পরিষেবা প্রদান করে।

 দারাজে ইতিহাস

২০১২ সালে মুনীব ময়ূর (প্রতিষ্ঠাতা) ও ফরিস শাহ (সহ-প্রতিষ্ঠাতা) ফ্যাশন খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে দারাজ প্রতিষ্ঠিত করেন এবং সেই সময় মুনীব রকেট ইন্টারনেটে কাজ করতেন।২০১৫ সালে বাংলাদেশ এবং মিয়ানমারে যাত্রা শুরু করে। ৯ মে, ২০১৮ সালে আন্তর্জাতিক দারাজ গ্রুপকে চীনা বহুজাতিক কোম্পানি ও ই-বাণিজ্য দানব আলিবাবা গ্রুপ কিনে নেয়।

শিল্প                   :  ই-কমার্স

বাণিজ্য অঞ্চল    :  বাংলাদেশ, পাকিস্তান, নেপাল, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা

প্রতিষ্ঠাতা            :  রকেট ইন্টারনেট

মাতৃ-প্রতিষ্ঠান      :   আলিবাবা গ্রুপ

প্রধান ব্যক্তি         :  বুজার্কি মিক্কিলেসেন (সিইও), শেখ আহমেদ

পণ্যসমূহ            :  মার্কেটপ্লেস, রিটেইলার

প্রতিষ্ঠাকাল         : ২০১২; ৯ বছর আগে

দারাজ বাংলাদেশ যাত্রা

২০১৫ সালে ‘দারাজ বাংলাদেশ’ নামে বাংলাদেশে দারাজের কার্যক্রম শুরু হয়।[১৫] কার্যক্রম শুরুর পর বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের তৎকালীন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এর শুভেচ্ছা দূত হন। ২০১৭ সালের শুরুর দিকে বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করা ই-বাণিজ্য প্রতিষ্ঠান ‘কেইমু’ দারাজের সাথে একীভূত হয়।

দারাজ সেলার হওয়ার নিয়ম

দারাজে যেমন আপনি একটি প্রোডাক্ট কিনতে পারবেন তেমনি আপনার একটি প্রোডাক্ট দারাজের হাত ধরে বিক্রি করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে দারাজে গিয়ে একটি একাউন্ট খুলতে হবে।তারপর আপনার কাঙ্খিত প্রোডাক্টটি সকল বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে আপনি দারাজে পোস্ট করে দিবেন। তারপর দারাস আপনার প্রোডাক্টের হাজারো গ্রাহকের সামনে প্রদর্শন করবে এবং যার ওই পন্যটি প্রয়োজন সে অনলাইনে অর্ডার করলে আপনি প্রোডাক্ট পেমেন্ট পেয়ে যাবেন এবং আপনাকে একটি এড্রেস দেয়া হবে সে এড্রেসে আপনি আপনার প্রোডাক্ট কুরিয়ার করে দিবেন। এভাবে দারাজ  অনেক জেলার বিভিন্ন ধরনের পণ্য সেল করে থাকে।