SMSstatus

ভ্রমন ও শিক্ষা সফর নিয়ে উক্তি বাণী ও স্ট্যাটাস

ভ্রমন ও শিক্ষা সফর নিয়ে উক্তি বাণী ও স্ট্যাটাস। আজকে আমরা আপনাদের সাথে ভ্রমণ ও শিক্ষা সফর নিয়ে উক্তি স্ট্যাটাস শেয়ার করব। আমরা এমন কোনো মানুষ নেই যারা জীবনে কোন একদিন কোথাও ঘুরতে যাইনি কিংবা শিক্ষা সফরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে জানি। সে ভ্রমণ ও শিক্ষা সম্পর্কে মনে রাখার জন্য আজকে আপনাদের সাথে নতুন কিছু উক্তি বাণীর স্ট্যাটাস আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যেগুলো হয়তো আপনাদের প্রমাণ যাওয়ার সময় কিংবা আপনাদের প্রিয় কোন মানুষ ভ্রমণে গেলে তাদের উইশ করতে পারবেন কিংবা এসএমএস করে তাদের শুভেচ্ছা জানাতে পারবেন।

শিক্ষা সফর নিয়ে উক্তি

পৃথিবী পরিভ্রমণ করো এবং দেখো অপরাধীদের পরিণতি কি হয়েছে ।

— সূরা নামল ৫৯

‘বলে দাও, তোমরা পৃথিবীতে পরিভ্রমণ করো, অতঃপর দেখো, যারা সত্যকে মিথ্যা বলেছে, তাদের পরিণাম কী হয়েছিল?’

— (সুরা : আনআম, আয়াত : ১১)

যদি ধনী হতে চাও, বেশী বেশী ভ্রমন করো ।

— আল-হাদিস

মেয়েদের প্রপোজ করার এসএমএস (SMS), মেসেজ, উক্তি, স্ট্যাটাস, পিকচার, ছবি

শিক্ষা সফর নিয়ে কবিতা

শিক্ষা সফর নিয়ে কবিতা। পৃথিবীতে অনেক কবি লেখক সাহিত্যিক যারা শিক্ষা সফর কিংবা ভ্রমণে গিয়ে সেই প্রকৃতির মায়ায় পড়ে অনেক ধরনের কবিতা লিখে গিয়েছেন। আজকে আমরা সেই রকমই কিছু বিখ্যাত কোভিদ কবিতা শিক্ষা সফর নিয়ে কবিতা আপনাদের সাথে শেয়ার করব। শিক্ষা সফরে যাওয়ার সময় সেই কবিতাগুলো যদি আপনার মনোযোগ দিয়ে পড়েন তাহলে ব্রহ্মন্দি আপনাদের অনেক আনন্দের হবে।

পাহাড় চূড়ায়

সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

——————————-

অনেকদিন থেকেই আমার একটা পাহাড় কেনার শখ।

কিন্তু পাহাড় কে বিক্রি করে তা জানি না।

যদি তার দেখা পেতাম, দামের জন্য আটকাতো না।

আমার নিজস্ব একটা নদী আছে,

সেটা দিয়ে দিতাম পাহাড়টার বদলে।

কে না জানে পাহাড়ের চেয়ে নদীর দামই বেশি।

পাহাড় স্থানু, নদী বহমান।

তবু আমি নদীর বদলে পাহাড়ই কিনতাম।

কারণ আমি ঠকতে চাই।

নদীটাও অবশ্য আমি কিনেছিলাম একটা দ্বীপের বদলে।

ছেলেবেলায় আমার বেশ ছোট্টোখাট্টো ছিমছাম একটা দ্বীপ ছিল।

সেখানে অসংখ্য প্রজাপতি।

শৈশবে দ্বীপটি ছিল বড় প্রিয়।

আমার যৌবনে দ্বীপটি আমার কাছে মাপে ছোট লাগলো।

প্রবহমান ছিপছিপে তন্বী নদীটি বেশ পছন্দ হল আমার।

বন্ধুরা বললো, ঐটুকু একটা দ্বীপের বিনিময়ে এতবড় একটা নদী পেয়েছিস?

খুব তো জিতেছিস মাইরি।

তখন জয়ের আনন্দে আমি বিহ্বল হতাম।

তখন সত্যিই আমি ভালবাসতাম নদীটিকে।

নদী আমার অনেক প্রশ্নের উত্তর দিত।

যেমন, বলো তো… আজ সন্ধেবেলা বৃষ্টি হবে কিনা?

সে বলতো, আজ এখানে দক্ষিণ গরম হাওয়া।

শুধু একটা ছোট্ট দ্বীপে বৃষ্টি, সে কী প্রবল বৃষ্টি, যেন একটা উৎসব।

আমি সেই দ্বীপে আর যেতে পারি না।

সে জানতো। সবাই জানে।

শৈশবে আর ফেরা যায় না।

এখন আমি একটা পাহাড় কিনতে চাই।

সে ই পাহাড়ের পায়ের কাছে থাকবে গহন অরণ্য,

আমি সেই অরণ্য পার হয়ে যাবো,

তারপর শুধু রুক্ষ কঠিন পাহাড়।

একেবারে চূড়ায়, মাথার খুব কাছে আকাশম নিচে বিপুলা পৃথিবী, চরাচরে তীব্র নির্জনতা।

আমার কষ্ঠস্বর সেখানে কেউ শুনতে পাবে না।

আমি শুধু দশ দিককে উদ্দেশ্য করে বলবো, প্রত্যেক মানুষই অহঙ্কারী,

এখানে আমি একা—এখানে আমার কোনো অহঙ্কার নেই।

এখানে জয়ী হবার বদলে ক্ষমা চাইতে ভালো লাগে।

হে দশ দিক, আমি কোনো দোষ করিনি।

আমাকে ক্ষমা করো… ক্ষমা করো।

 

যমুনা নদী ভ্রমণ

রাসেল সরকার

———————————————

যমুনা নদী করিনু ভ্রমণ

আর কোন নদ-নদী কি আছে অমন?

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কি যে বাহার

বুকে আগলে রাখে অজস্র আহার!

থৈ থৈ করে জল পুরো বর্ষা ঋতু ভর

হেমন্তে জাগে নদীগর্ভে থোকায় থোকায় বালুর চর।

তীরের মাটি গর্ত করে ঘর বাধে মাছরাঙ্গা

কাশফুলে কাশফুলে ছেঁয়ে যায় দুই ধারের ডাঙ্গা।

বক, পানকৌরী উড়ে বেড়ায় দিনভর

আকাশে পানে চেয়ে পাইনা শেষ প্রান্তর!

ক্ষণিক পরপর শ্বাস নিতে শূশূকের লাফালাফি

হঠাৎ কখন পানি ছুঁয়ে উড়ে গেলো ডাহুক পাখি!

কত নৌকা, স্টিমার চলে আরো জাহাজ শত

জাল পেতে জেলেরা মাছ ধরে দিনরাত্র।

একটু পরেই নদীর তীরে দেখা গেলো সূর্যাস্ত

সারাদিনের কোলাহল নিস্তব্ধতায় হলো শান্ত!


ভ্রমণ

আহম্মেদ ইমতিয়াজ মোহাম্মাদ


সারমেয়র কান্না শুনে ধড়মড়িয়ে জেগে উঠি,

গভীর ঘুম ধূম হয়ে জমাট অন্ধকারে মিশে গেল।

কপালের প্রতিটি ভাঁজে বিপদের সম্ভাবনা জাগে,

হায়! আমি কোথায়? ভয়ে বুক অসার হয়ে আসলো।

হাত দিয়ে দু’চোখ কচলে নিয়ে তাকাই আবার,

এটা স্বপ্ন বা বিভ্রম নয়তো? না, এ যে বাস্তব;

সত্যাসত্য যেখানে দোস্তের মত গলা জড়াজড়ি করে…

মাথার উপর সিলিং, পায়ের নিচের মেঝে উধাও!

নিজেকে আবিষ্কার করলাম খোলা আকাশের নিচে।

পায়ের নিচে ভেজা নরম মাটি, সোঁদা গন্ধ পাচ্ছি।

গাঢ় আঁধার কাটিয়ে চারপাশটা দেখার বৃথা চেষ্টা করলাম,

একবার আকাশ-পাতাল কাঁপিয়ে চিৎকার দিলাম,

কোন সাড়া নেই, আমি একা লোকালয়ের বাইরে।

উলূকের মত ভয়ার্ত বড় বড় চোখে রাত জাগলাম।

অন্ধকার কেটে গিয়ে ধূসরতায় পূর্ণ হল চারপাশ ক্রমশ।

দিন না রাত বুঝা গেল না, তবে আবছা দেখতে পাচ্ছি।

শূন্যতায় পরিপূর্ণ সারাটা, সসেমিরায় তাকালাম যতদূর দৃষ্টি যায়;

যদিও পথ নেই, তবুও হাঁটা শুরু করলাম, জানি না যাচ্ছি কোথায়।

দূরে এক নাম না জানা মৃত বৃক্ষ দেখে এগিয়ে যাই,

চলার পথে হঠাৎ হুমড়ি খেয়ে পড়লাম;

কর্দমাক্ত হলাম, ঘৃণা ভরা একটা অনুভূতি পন্নগের মত মস্তিষ্কে বেয়ে উঠল।

কিসে হোঁচট খেলাম? খুঁজে বের করে ত্রাসে পাথর হয়ে গেলাম।

এ যে শবাধার, কিন্তু কার? লাশ নেই, শূন্য পড়ে।

মাথার উপর অভ্র অভদ্রের মত ডেকে উঠলো।

বাজ দৃষ্টিতে দেখলাম চারপাশে পড়ে আছে শূন্য শবাধার,

কোথাও কোথাও উপড়ে পড়ে রয়েছে সমাধি ফলক।

এখন দৌড়াতে শুরু করলাম, লক্ষ্য সেই মৃত বৃক্ষ।

পৌঁছে দেখি তার পাশ দিয়ে রক্ত বৈতরণী যাচ্ছে বয়ে,

তার তীরে কিছু লোক বসে আছে মাথা নুয়ে।

কাছে যেতেই তারা শ্বব্যবহার করলো, “কেন এসেছো এখানে?

তোমার তো এখনও সময় হয়নি; যাও ফিরে যাও,

তোমার এখনও অনেক পাপ করা আছে বাকি।

ছেড়ে যাও এ সপ্তম নরক এখুনি।”

এরা যে মৃতের দল বুঝতে বাকি রইলো না আমার।

তাদের লাল চোখের আভায় রক্তিম চারপাশ,

তাদের গলিত পচা অবয়ব দেখে সংবিত্তি হারালাম।

জ্ঞান ফিরলে দেখি আমি সেই পূর্ব অবস্থানেই; ধীরে উঠে বসলাম।

এই মুহূর্তে হাসি পাচ্ছে আবার কাঁদতেও ইচ্ছে করছে –

নরক ছেড়ে এখন আমি পুরনো সেই গোরস্থানে

লৌকিকতাহীন এ জায়গা, যেখানে আমার মত গোরখোদক

জ্যান্তদের জোর করে পুঁতে ফেলে মাটির গভীরতম পরতে।

কষ্ট পেলাম জানতে পেয়ে,নরকের চেয়েও খারাপ এই বাস্তবতা…

সশরীরে নরক ভ্রমণে গিয়ে।

শিক্ষা সফর নিয়ে কিছু কথা

একটি মানুষের জন্য ভ্রমণ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রত্যেকটি মানুষের জীবন কেটে যায় বিভিন্ন ধরনের কর্মব্যস্ততায়। যার ফলে সে নিজেকে কখনো সময় দিতে পারে না। এর ফলে আস্তে আস্তে সে তার মানসিক এবং শারীরিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। তখন তার কাছে একটি বিষয় মাথায় ঘোরাফেরা করে সেটি হচ্ছে কাজ করতে হবে টাকা ইনকাম করতে হবে। এই মায়াজাল এর বাইরে সে কখনো আসতে পারে না।

এর জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রতি মাসে কিংবা বছরে একটু ঘোরাঘুরি প্রকৃতির সাথে সম্পর্ক করতে হবে। তাহলে আপনার জীবনকে আরো সুখময় হয়ে যাবে।

শিক্ষা সফর নিয়ে স্ট্যাটাস

আপনি কি শিক্ষা সফর নিয়ে স্ট্যাটাস খুঁজতেছেন? আপনি কি ভাবছেন শিক্ষা সফরে যাওয়ার আগে বন্ধু বান্ধবীকে শিক্ষা সফর নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে শুভেচ্ছা জানাবেন। তাহলে আপনি সঠিক পোস্টে ভিজিট করেছেন। কারণ আজকে আমরা আপনাদের শিক্ষা সফর নিয়ে স্ট্যাটাস শেয়ার করব। যে স্ট্যাটাস গুলো আপনাদের শিক্ষা সফরে যাওয়া বন্ধু-বান্ধবীদের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য বেলফুল হবে।

পুরো পৃথিবী একটি বই, এবং যারা ভ্রমণ করে না তারা কেবল এর একটি পৃষ্ঠা পড়ে ।

— -সেন্ট অগাস্টাইন

পদচিহ্ন ভুলে যাও আর সৃতিগুলো নিয়ে নাও ।

— -চিফ স্যাটেল

যে সুখে ভ্রমণ করতে চায়, তাকে অবশ্যই হালকা ভ্রমণ করতে হবে ।

— -আন্টোইন ডি সেন্ট এক্সুপেরি

প্রতি বছর এমন একটি জায়গায় ভ্রমন করা উচিৎ যেখানে এর আগে কখনই যাওয়া হয় নি ।

— -দালাই লামা

ভ্রমণ মানুষকে পরিমিত করে তোলে। আপনি দেখতে পান যে আপনি পৃথিবীতে কত ছোট জায়গা দখল করেছেন।

— -গুস্তাভে ফ্লুবার্ট

একটি অদ্ভুত শহরে একা জাগ্রত থাকা, অন্যরকম এক অনুভুতি ।

— -ফ্রেয়া স্টার্ক

তুমি কতটুকু শিক্ষিত তা আমাকে বলো না, তুমি কত জায়গা ভ্রমন করেছো সেটা বলো ।

— -মুহাম্মদ

তীরে দৃষ্টি হারানোর সাহস না থাকলে মানুষ নতুন মহাসাগর আবিষ্কার করতে পারে না ।

— -আন্ড্রে গিড

কুসংস্কার, গোঁড়ামি এবং সংকীর্ণতার জন্য ভ্রমণ হলো মহা ঔষধ ।

— -মার্ক টোয়েন