News

 শুভ জন্মদিন লিওনেল মেসি ( Happy Birthday Lionel Messi)

 শুভ জন্মদিন লিওনেল মেসি ( Happy Birthday Lionel Messi)। সম্মানিত পাঠক, আমাদের ওয়েবসাইটের জন্য আপনাকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আজকে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করব ফুটবল জগতের  কিং, সেইসাথে ফুটবল জগতের জাদুকর মেসি জীবন বৃত্তান্ত সম্পর্কে। আজ মেসির জন্মদিন। আজ কত তম জন্মদিন তিনি কীভাবে তিনি এই ফুটবল জগতে আসলেন। সে সকল বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যদি আপনি একজন মেসি ভক্ত হয়ে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়বেন।

মেসির জন্ম তারিখ কবে

বর্তমান সময়ে অনেকেই এই প্রশ্নটিই করে থাকেন মেসির জন্ম তারিখ কবে। আজকে আমরা আপনাদের সাথে মেসির জন্ম তারিখ এবং সেইসাথে তিনি কিভাবে ফুটবল জগতে আগমন করলেন সেই বিষয়ে কিছু তথ্য শেয়ার করব।

১৯৮৭ সালের ২৪ জুন। আজ থেকে ঠিক ৩৫ বছর আগে, এইদিনে হোর্হে মেসি ও সেলিয়া কুচেত্তিনির ঘর আলো করে আর্জেন্টিনার রোজারিও শহরে জন্ম নিয়েছিলেন ক্ষুদে জাদুকর লিওনেল আন্দ্রেস মেসি কুচেত্তিনি বা সংক্ষেপে লিওনেল মেসি। আজ তার জন্ম দিন। শুভ জন্মদিন ‘দ্য ম্যাজিশিয়ান’ লিওনেল মেসি।

হাজার ১৯৮৭ সালের 24 জুন তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ছোটবেলায় তিনি হরমোন জনিত সমস্যার কারণে বারছিলো না তার উচ্চতা। কিন্তু আল্লাহতালার অশেষ রহমতে তিনি তাঁর জাদুকরী সব প্রতিবার কারণে তাকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারেনি। তার এই প্রতিভার কারণে প্রথমে যে ক্লাবে অংশগ্রহণ করেন সেই ক্লাবের নাম হচ্ছে ক্লাব নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজ।তারপর তিনি সেখান থেকে পারফর্মেন্স ভালো করার কারণে  স্পেনের ক্লাব বার্সেলোনার একাডেমি “লা ম্যাসিয়া” এর আঙ্গিনায়নাম লেখালেন। সেখান থেকে তাকে আর  ফিরে তাকাতে হয়নি।

সেখানে গিয়ে তিনি তার জাদুকরী কেলমা দেখাতে শুরু করে। ছোটখাটো চেহারা ,পায়ের অসাধারণ জাদুকরী কৌশল সবকিছু মাঠের দর্শক কে  কাঁপিয়ে তোলে।

২০০২ সাল থেকে বার্সা যুবদলের হয়ে ক্যারিয়ার শুরু হয় লিওনেল মেসির। ২০০৩ সালে যোগ দেন বার্সার অনূর্ধ্ব-১৬ দলে। এরপর বার্সা অনূর্ধ্ব-১৯, বার্সা সি দল আর বি দলের হয়ে খেলে ২০০৫ সালে ১ জুলাই থেকে বার্সার মূল দলে জায়গা করে নেন তিনি।

তারপর থেকে তাকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর 116 তার পায়ে ধরা দিতে শুরু করে। তার  ক্যারিয়ারে করেছেন ৭০০ এরও বেশি গোল। সাথে ভূমিকা রেখেছেন আড়াইশ এরও বেশি গোলেও। সব মিলিয়ে ক্যারিয়ারে ১১০০ এরও গোলে সরাসরি অংশীদারিত্ব আছে তার।

কাতালানদের হয়ে ৭৩১ ম্যাচে ৬৩৪টি গোল করেছেন। সঙ্গে অবদান রেখেছেন ২৮৫টি গোলেও। স্প্যানিশ ক্লাবের হয়ে জিতেছেন ৩৪টি শিরোপা। আর রেকর্ডের পর রেকর্ড গড়া তো তার কাছে নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার।লিওনাল মেসি এ পর্যন্ত সাতবার বিশ্ব সেরা পুরস্কার অর্জন করেছেন। সেই সাথে আরো ছোটখাট যে কত পুরস্কার পেয়েছেন তার কোনো অভাব নেই। তার ঝুলিতে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি স্বর্ণ এবং স্বর্ণের ফুটবল রয়েছে। এযাবত কালে তার রেকর্ড কেউ ভাঙতে পারেনি।

২০০৫ সালে আকাশী-সাদার জার্সিতে অভিষেক হওয়ার পর জাতীয় দলের হয়ে এখনো রয়েছেন শিরোপাহীন। সুযোগ যে আসে নি তা নয়। আলবিসেলেস্তেদের হয়ে ২০১৪ বিশ্বকাপের পাশাপাশি ২০০৭, ২০১৫ ও ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকার ফাইনালে গেলেও সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রানার্সআপ হয়েই।তিনি জাতীয় দলের হয়ে কোনো কাপ না জিতলেও ব্যক্তিগত ঘরোয়া লিগ শেষ হতে আরও বিভিন্ন ধরনের খেলায় তিনি অগণিত পুরস্কার পেয়েছে। আর্জেন্টিনার হয়ে ১৪৭ ম্যাচে করেছেন ৭৩ গোল করে ইতিমধ্যেই দেশের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা মেসি।

মেসির জন্মদিনের পিক

 যে সকল ভক্তবৃন্দ দের জন্মদিনের পিক খুজতেছেন তাদের জন্য আজকে সুন্দর কিছু জন্মদিনের পিক শেয়ার করা হচ্ছে। যে পিক গুলো আপনারা চাইলে সবার সাথে শেয়ার করতে পারেন।

মেসির জন্মদিনের পিক

মেসির জন্মদিনের পিক