health tips

গরম পানি খাওয়ার ৫+টি উপকারিতা ও অপকারিতা

গরম পানি খাওয়ার ৫+টি উপকারিতা ও অপকারিতা,পানির অপর নাম জীবন। কিন্তু পানির অপর নাম আবার মরণ। তাহলে আপনি কোন দিকে যাবেন। আজকে আমরা ঠিক তেমনই পানি সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করব। আজকের বিষয়বস্তু হচ্ছে গরম পানি খাওয়ার পাঁচটি উপকারিতা ও অপকারিতা। আমাদের শরীরে প্রায় 70 পার্সেন্ট পানি রয়েছে। প্রতিদিন আমাদের ন্যূনতম দুই লিটার পানি পান করতে হবে। তা না হলে আমাদের শরীরের পানির শূন্যতা থেকে যাবে। কিন্তু পানি ঠান্ডা পান করা উপকার নাকি গরম পানি পান করা উপকার। আজকে আমরা আপনাদের গরম পানি খাওয়ার পাঁচটি উপকারিতা ও ব্যবহার করব।

Read more>>> ভিটামিন এ এর অভাব জনিত রোগ এর লক্ষন ও এর প্রতিকার

গরম পানি খাওয়ার পাঁচটি উপকারিতা

পানি খালি চোখে বিশুদ্ধ দেখা গেল ওই পানির মধ্যে রয়েছে অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়া শিক্ষা এবং আয়রন। এছাড়া অনেক কি বলে পানিতে আর্সেনিক রয়েছে। জাপান করলে মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। কিন্তু এই পানি যদি আপনি ফুটে পান করেন তাহলে আপনার কি উপকার হতে পারে। সেগুলো নিম্নে আলোচনা করা হলো।

  • খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে যদি এক গ্লাস কুসুম গরম পানি খাওয়া যায় তবে অ্যাসিডিটি, বদহজম, অম্বলের মতো একাধিক সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি মিলবে।
  • প্রতিদিন সকালে খালি পেটে গরম পানি খেলে শরীরের টক্সিক উপাদানগুলি সহজেই বাইরে বেরিয়ে যাবে ও শরীরের তাপমাত্রা বাড়বে। আর শরীরের তাপমাত্রা বাড়লে শিরা, ধমনীতে রক্তচলাচলের গতিও স্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পায়।
  •  কুসুম গরম পানি খেলে শরীরের ভেতরের তাপমাত্রাটা সামান্য হলেও বৃদ্ধি পায় এবং ঘাম হয় বেশি। ঘামের সঙ্গে শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বের হয়ে যায়।
  • দীর্ঘদিন ধরে যারা বাতের ব্যথায় ভুগছেন তারা খেতে পারেন গরম পানি। গরম পানির সঙ্গে শরীরে জমে থাকা অপ্রয়োজনীয় উপাদান ঘামের সঙ্গে বাইরে বেরিয়ে যাবে। ফলে ব্যথা বোধও ক্রমশ কমে আসবে।
  • শরীরের অতিরিক্ত চর্বি কমাতে কুসুম গরম পানির জুড়ি নেই। গরম পানি খেলে শরীরের মেটাবলিক রেট বাড়ে এবং সহজেই অনেকটা ক্যালোরি পোড়ে।
  •  আপনি কি দীর্ঘদিন ধরে কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন? কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা হলে সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে এক গ্লাস কুসুম গরম পানি খেলে পেট সহজেই পরিষ্কার হয়ে যাবে। এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে।
  •  গরম পানি খাওয়ার চাহিদা কমিয়ে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানির সঙ্গে পাতি লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারলে মেদ ঝরবে দ্রুত।

গরম পানি খাওয়ার পাঁচটি অপকারিতা

আমাদের দেশে অনেক মানুষ রয়েছে যারা বিশুদ্ধ পানি পান করতে পারে না। বিশুদ্ধ পানি হচ্ছে পানি ফুটানোর উপায় করে পানির মধ্যে থাকা সকল ধরনের জীবানু নাশ করে সেই পানি পান করা। কিন্তু আমাদের দেশের প্রায় অধিকাংশ মানুষ কেবল থেকে পানি সরাসরি পান করে থাকে। কিছু টাকা ধার নেয় পানির মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়া আয়রন আর্সেনিক এবং যা মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। নেপালি নিয়মিত খেলে মানবদেহে বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধি সৃষ্টি হবে। পানি ফুটিয়ে পান করলে এর তেমন কোনো অপকারিতা নেই। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে গরম পানি পান করলে আপনার জিব্বা পড়ে যেতে পারে। তারপর ফুটন্ত পানি যদি আপনি পান করতে চান আপনার পেটে ব্যথা হতে পারে। যার ফলে আপনি অতিরিক্ত ফুটন্ত পানি পান করবেন না।