Tips & tricks

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং একাউন্ট খোলার সুবিদা

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং একাউন্ট খোলার সুবিদা

সম্মানিত পাঠক, আজকের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে।  ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খুলবেন কি ভাবে। আজকে আমরা কথা বলবো ইসলামী ব্যাংক এর অ্যাকাউন্ট খোলা সম্পর্কে এবং এই ব্যাংকের যাবতীয় সুবিধা অসুবিধা সমূহ নিয়ে। ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং একাউন্ট খোলার সুবিদা সমূহ নিচে দেয়া হলো।

আমাদের প্রয়োজনের তাগিদে আমরা কাজ করে থাকি। সে কাজের বিনিময়ে আমরা যে অর্থ পাই। সেই অর্থগুলো যতটুকু প্রয়োজন খরচ করি আর যতটুকু অবশিষ্ট থাকে তা একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রাখি। শেষের জায়গা রাস্তাটি অর্জন করেছে ইসলামী ব্যাংক। আমাদের দেশে আরো অনেকগুলো বেসরকারি ব্যাংক রয়েছে। তাদের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় ব্যাংক হচ্ছে ইসলামী ব্যাংক।যে ব্যাংকটিতে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা বিদ্যমান রয়েছে।

আজকের পরিচ্ছেদসমূহ

  1. ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার উপায়
  2. ইসলামী ব্যাংকের সুযোগ সুবিধা
  3. কারেন্ট একাউন্ট
  4. কারেন্ট একাউন্ট খোলার সুবিধা
  5. সেভিংস একাউন্ট
  6. স্টুডেন্ট একাউন্ট একাউন্ট এর সুবিধা
  7. স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন?

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার উপায়

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার উপায়

  • গ্রাহকের ভোটার আইডি কার্ড, জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি
  • গ্রাহকের যদি  ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা পাসপোর্ট এর ফটোকপি।
  •  গ্রাহকের সদ্য তোলা রঙ্গিন পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি।
  •  নমিনির নির্বাচনকৃত ব্যক্তির একটি আইডি কার্ড বা জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি এবং এক কপি রঙিন ছবি।

তারপর  আপনি ইসলামী ব্যাংকের যে কোন একটি শাখায় উপস্থিত হন। তারপর একজন ব্যাংকিং কর্মকর্তা সাথে যোগাযোগ করুন। তখন আপনাকে একটি একাউন্ট অপেনিং ফর্ম দিবে, সে ফর্ম পূরন করে ব্যাংক জমা দিন তারপর আপনার একাউন্ট কয়েকদিনের মধ্যে চালু হয়ে যাবে।

ইসলামী ব্যাংকের সুযোগ সুবিধা

বাংলাদেশের অনেকগুলো বেসরকারি ব্যাংক রয়েছে। সে ব্যাংক গুলোর মধ্যে মূলত ইসলামী ব্যাংক একটু সুযোগ সুবিধা বেশি দিয়ে থাকে। তাদের সুযোগ সুযোগ সুবিধা গুলো নিচে দেয়া হল।

>>ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার পর খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে আপনারা চেক বই পেয়ে যাবেন।

>>যদি আপনার আত্মীয়র মধ্যে কেউ প্রবাসে থাকে। তাহলে তিনি আপনার গোপন পিন নাম্বারে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত একসাথে পাঠাতে পারবেন।

>>যদি কেউ প্রবাসে থাকে তাহলে। তিনি প্রবাস থেকে প্রতিমাসে যত টাকা পাঠাবেন উক্ত টাকার 3 পার্সেন্ট বোনাস পাবেন। তাতে প্রতিমাসে লাখে 3000 টাকা লাভ পাবে।

>>ইসলামী ব্যাংকের খুব সহজে নগদ টাকা জমা দিতে পারবেন এবং সাথে সাথে তা উত্তোলন করতে পারবেন এবং যেকোন ব্যাংকে ট্রান্সফার করতে পারবেন।

কারেন্ট একাউন্ট

ইসলামিক ব্যাংকে মূলত অনেক ধরনের একাউন্ট খোলা যায়। তার মধ্যে একটি হচ্ছে কারেন্ট একাউন্ট। এই একাউন্টের সুবিধা হচ্ছে আমনে যখন খুশি যত খুশি টাকা রাখতে পারবেনএবং প্রয়োজনমতো সাথে সাথে আপনি আপনার ইচ্ছামত টাকা তুলতে পারবেন।

কারেন্ট একাউন্ট খোলার সুবিধা

এই একাউন্ট খোলে মূলত যারা  চাকরি করে বা ব্যবসা-বাণিজ্য করে।এই একাউন্টে আপনি যখন খুশি টাকা জমা দিতে পারবেন এবং যখন খুশি টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

এই একাউন্টের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে আপনি যখন তখন লেনদেন করতে পারবেন।

স্টুডেন্ট একাউন্ট এর সুবিধা

  1. মোবাইল রিচার্জ বা টপ-আপ এর সুবিধা
  2. ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা তোলার সুবিধা
  3. দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে 24 ঘন্টা এটিএম এর মাধ্যমে টাকা তোলার সুবিধা
  4. ফ্রি এটিএম কার্ড
  5. ইন্টারনেট ব্যাংকিং
  6. সম্পূর্ণ ফ্রি-তে ব্যাংকিং করা
  7. স্বল্প জামানতে একাউন্ট একটিভ করা

স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন?

  1. মোবাইল নাম্বার
  2. নমিনি আইডি কার্ড
  3. এনআইডি বা জন্ম নিবন্ধন
  4. পাসপোর্ট সাইজের ফটো
  5. শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড বা প্রত্যয়ন পত্র
  6. একাডেমি ট্রানজিট