Tips & tricks

নতুন ৩টি আমের আচারের রেসিপি

নতুন ৩টি আমের আচারের রেসিপি। কাঁচা আম, নাম শুনলে জিভে জল এসে যায়। আমাদের দেশ 6 ঋতুর দেশ। আমাদের দেশে 12 মাস আম পাওয়া যায় না। যার ফলে আমরা অনেকেই আম বা কাঁচা আম সংরক্ষণ করে রাখি। যার ফলে সারা বছর এই কাঁচা আমের স্বাদ নিতে পারি। আজকে আমরা আপনাদের তিনটি কাঁচা আম সংরক্ষণ এর রেসিপি শেখাবো। সেই সাথে কাঁচা আম দিয়ে আরও বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক খাবার তৈরি করা যায় সে বিষয়ে অনেক তথ্য দেব।

যদি আপনি কাঁচা আম দিয়ে বিভিন্ন ধরনের রেসিপি তৈরি করতে চান। তাহলে আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়বেন। কারণ আজকে আমরা আপনাদের সাথে কাঁচা আম দিয়ে মজাদার কিছু রেসিপি শেয়ার করব। চলুন রেসিপি গুলো দেখা যায়।

কাঁচা আমের রেসিপি এক

গ্রাম বাংলার সবচাইতে মজাদার কাঁচা আমের রেসিপি হচ্ছে আম ভর্তা। কাসুন্দি দিয়ে কিভাবে মুখরোচক কাঁচা আমের ভর্তা তৈরি করতে হয় সে সকল প্রয়োজনীয় উপাদান নিচে শেয়ার করা হলো।

আমের আচারের রেসিপি

>>প্রথমে আপনাকে কাঁচা আম সংগ্রহ করতে হবে। আমগুলো যেন বেশি বয়স না হয়।

>>তারপর সেই আম গুলো ভালভাবে ধৌত করে কুচি কুচি করে কাটতে হবে।

>>আমগুলো কাটার পর সেই কাঁচা আম গুলো ব্লেন্ডার কিংবা গ্রামের পাটা এরমধ্যে হালকাভাবে থেত করতে হবে।

>>আমগুলো থেত করার পর। শুকনো মরিচ পরিমান মত নিতে হবে।

>>শুকনো মরিচ গুলো সরিষার তেল দিয়ে আগুনে হালকা পড়াতে হবে।

>>তারপর পরিমাণমতো কাসন্ত নিতে হবে।

>>সবশেষে শুকনো মরিচ গামলায় নিয়ে সেখানে লবণ-মরিচ একসাথে ভালো ভাবে হাত দিয়ে পিষতে হবে।

>>মরিচ লবণ মিশ্রন হওয়ার পর সেখানে আম দিয়ে ভালোভাবে মেখে তারপর কাসুন্দি দিতে হবে।

>>আপনি চাইলে একটু মিষ্টি ভাব আনার জন্য চিনি ব্যবহার করতে পারবেন তাতে এই আচার এরশাদ আরও বেড়ে যাবে।

কাঁচা আমের মেয়োনিজ

 >>প্রথমে একটা ব্লেন্ডারে শুধু তেল ছাড়া বাকি সব উপকরণ নিয়ে ব্লেন্ড করুন।

>>এরপর মেশিন চালু করে তাতে আধা মিনিট পরপর ১ চা চামচ করে তেল ঢালতে থাকুন। মনে রাখবেন, একবারে তেল ঢালা যাবে না।

>.>এভাবে ৭-৮ মিনিট ধরে ব্লেন্ডারে একটু একটু করে তেল ঢালতে থাকুন। সব তেল ঢালা হতে হতেই তৈরি হয়ে যাবে মেয়োনিজ।

  >>ব্লেন্ডার থেকে কাচের পাত্রে মেয়োনিজ ঢেলে ৫-১০ মিনিট জমতে সময় দিন। এরপর ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

কাচা আমের ঝুরি আচার

>>হাঁড়িতে আম কুচি আর চিনি একসঙ্গে মাঝারি আঁচে জ্বাল দিন। চিনি আর গুড় গলে পানি বের হলে রসুন বাটা, মরিচ গুঁড়া আর লবণ দিন।

>>হালকাভাবে নাড়তে থাকুন। পানি কমে এলে আচারের বিশেষ মসলা দিয়ে নেড়েচেড়ে চুলা বন্ধ করে দিন। পানি একেবারে শুকিয়ে ফেলবেন না। আচার ঠাণ্ডা হলে ঘন হবে।

>>সরিষার তেল প্রথমে চুলায় গরম করে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন।

>>কাচের বয়াম প্রথমে সরিষার তেল ঢেলে তারপর আচার ভরে সংরক্ষণ করুন।

কাঁচা আমের মিষ্টি আচার

এই আচারটি তৈরি করতে হলে আপনাকে যে উপকরণ গুলো লাগবে সেগুলো হচ্ছে কাঁচা আম, চিনি, শুকনা মরিচ, সরিষার তেল।

আমের আচারের রেসিপি

>>প্রথমে আপনাকে আমগুলো ভালোভাবে পরিষ্কার করে উপরের চামড়া ফেলে দিতে হবে।

>>তারপর আমগুলো চুনা দিয়ে মেখে রোদে কিছুক্ষণ শুকাতে হবে।

>>শুকানো শেষ হলে পানি দিয়ে আমগুলো গায়ে লেগে থাকা চুনা পরিষ্কার করতে হবে।

>>তারপর একটি কড়াইতে চিনি দিয়ে জ্বাল দিতে হবে। চিনি যখন গলে যাবে তখন সেখানে শুকনো মরিচ এবং সরিষার তেল দিয়ে নাড়াচাড়া করতে হবে।

>>তারপর সে আমগুলো চেনির সূরার মধ্যে দিতে হবে। হালকা পরিমাণ পানি দিয়ে জ্বাল দিতে হবে।

>>ঘন্টাখানেক জাল দেওয়ার পর যখন দেখবেন পানি গুলো শুকিয়ে গেছে এবং আমগুলো সিদ্ধ হয়ে গেছে তখন চুলা থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা করতে হবে।

>>ঠান্ডা করার পর আপনি এই আচার ফিউচারে অনেক দিন সংরক্ষণ করে রাখতে পারবে।

যদি আমাদের এই রেসিপি গুলো আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানাবেন এবং সবাইকে শেয়ার করে দিবেন। যাতে এই বৈশাখ মাসে সবাই আম সংরক্ষণ করে রাখতে পারে এবং সারা বছর কাঁচা আমের স্বাদ নিতে পারে।