Love Tips

বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর কৌশল

বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর কৌশল অনেক ছেলেরা আছে যারা মেয়ে পাগল। তারা যে খানেই যাক না কেন মেয়ে পটানোর ধান্দা খোঁজে।কিন্তু এর মধ্যে অনেকে আছে যারা মেয়ে পাগল কিন্তু মেয়ে পটাতে পারে না। তারা যদি কোন অনুষ্ঠানে জন্মদিনের পার্টিতে বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে কোন মেয়ের প্রতি ক্রাশ খায় তখন তাদের পটাতে পারে না।

সে সকল ছেলেদের জন্য আজকে একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস নিয়ে এসেছি। সেটি হচ্ছে কোন কৌশলে বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটাবেন। আপনারা beya bareta meya potanour kousol গুলো রপ্ত করে নিন।

beya bareta meya potanour kousol

আপনারা যে কৌশলে বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটাবেন সে কৌশলগুলো আজকে খুব সহজে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব। বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর সহজ কৌশল টি যদি আপনার অবলম্বন করেন তাহলে খুব সহজে আপনারা একটি মেয়েকে পটিয়ে ফেলতে পারবেন।

অনেকেই আছে যারা ইউটিউব খোলো পড়ে অনেক উপকৃত হবেন। আবার অনেকে আছে যারা এই টিপসগুলো পড়ে অবহেলা করে আর তা প্রয়োগ করবেন না। যদি আপনাদের কোন অনুষ্ঠানে গিয়ে মেয়ে পছন্দ হয় তাহলে এই টিপসগুলো আপনাদের কাজে লাগবে। তো দেরি না করে আমরা কোন মূল বিষয় চলে যাব।

মেয়ে পটানোর কৌশল সমূহ

প্রথম কৌশল: কোন বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে গিয়ে যদি আপনি কোন মেয়ের প্রতি ক্রাশ খান তাহলে আপনাকে প্রথমে যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। সেটি হচ্ছে মেয়েটি যে জায়গায় দাঁড়িয়ে আছে আপনি তার ফেস বরাবর একটু দূরে কোন বন্ধু বান্ধবের সাথে দাড়িয়ে থাকবেন। তারপর আপনি আপনার বন্ধুদের সাথে এমন ভাবে কথা বলবেন যেন আপনার ফোকাসটা মেয়ের দিকে থাকে। এভাবে দুই-তিনবার মেয়েটির দিকে তাকালে মেয়েটি তখন বুঝবে যে আপনি তার দিকে লক্ষ্য রাখছেন।

দ্বিতীয় কৌশল: তারপর লক্ষ্য করবেন মেয়েটিকে অনুষ্ঠানে কার সাথে বেশি কথা বলছে। আপনি তার সাথে অ্যাক্টিভ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলুন। যেন আপনি ওই মেয়েটির সম্পর্কে বিস্তারিত সব তথ্য জানতে পারেন।

তৃতীয় কৌশল: তারপর আপনার জানতে হবে মেয়েটি কি করতে পছন্দ করে কি খেতে পছন্দ করে কোথায় ঘুরতে পছন্দ করে কোন কালার তার পছন্দ তার জন্মদিন কবে সকল বিস্তারিত তথ্য আপনার জানতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজে বিষয়টি হ্যান্ডেল করতে পারবে।

চতুর্থ কৌশল: তারপর মেয়েটির সাথে কথা বলার চেষ্টা করুন।যেকোনো একটি ট্রপিক নেতার সাথে কথা বলার চেষ্টা করবেন এবং সে সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবেন। তাকে বোঝাবেন যে আপনি সে বিষয়টি জানতে খুব আগ্রহী। এভাবে যখন আপনাদের মাঝে কথা আদান-প্রদান হবে তখন বিষয়টি আপনার কাছে আর একটু সহজ হয়ে যাবে।

পঞ্চম কৌশল: তারপর মেয়েটির খুব কাছের কারো সাথে সম্পর্ক করার চেষ্টা করুন। যেমন কাজিন কিন্তু এক্ষেত্রে মেয়েটির মেয়ে কাজিন দের সাথে যদি আপনি ভালো একটি সম্পর্ক করতে পারেন তাহলে আপনার জন্য বেটার। কারণ ছেলে কাজিনের সাথে যদি আপনি কথা বলেন তাহলে আপনি সেরকম হেলপ তার কাছ থেকে পাবেন না। সে বিষয়টি আপনাকে মাথায় রাখতে হবে।

ষষ্ঠ কৌশল: এখন যে কথাটি বলবো সেটি হচ্ছে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ একটি কথা।সেটা হচ্ছে আপনি যদি ওই মেয়েটির আম্মুর সাথে কোনভাবে ভালো ত্রিকুট রিলেশন তৈরি করতে পারেন। এবং মেয়েটির মায়ের মনে আপনি একটা ভালো আস্থা তৈরি করতে পারেন। তাহলে আপনার আর কোনো বাধা থাকবে না।তখন মেয়েটির মা যদি আপনার প্রসঙ্গে মেয়েটির সামনে ভালো কিছু বলে তখন মেয়েটি আপনার আপনি আপনার প্রতি দুর্বল হয়ে যাবে। তখন আপনি তার সাথে একটি রিলেশনের যেতে পারবেন।

তারপর মেয়েটির সাথে বেশি বেশি সময় কাটানোর চেষ্টা করুন এবং তাকে বোঝাতে চেষ্টা করুন যে আপনি তাকে পছন্দ করেন এবং ভালোবাসেন। এভাবে যখন মেয়েটির মনে আপনি জায়গা করে নিবেন তখন দেখবেন মেয়েটি আপনা আপনি আপনাকে তার উত্তর দিয়ে দিয়েছে।

যদি আমাদের এই কৌশল গুলো আপনাদের ভালো লেগে থাকে। তাহলে অবশ্যই তা কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আর যদি ভালো না লেগে থাকে তাও আমাদের জানাবেন।

আরো পড়ুন:

রোমান্টিক এস এম এস