News

ধানুশ-ঐশ্বরিয়ার বিচ্ছেদ ছিল অবশ্যম্ভাবী!

ধানুশ-ঐশ্বরিয়ার বিচ্ছেদ ছিল অবশ্যম্ভাবী!,সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ার সঙ্গে হচ্ছে দক্ষিণী সুপারস্টার ধানুস এর বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে। কিন্তু এই কথাটা তো সত্য?যদি এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

শোনা যাচ্ছে দুই দশকের বেশি দাম্পত্য জীবনের ইতি টেনেছেন তামিল তারকা ধানুষ ও তার স্ত্রী ঐশ্বরিয়া। প্রায় সময়ই দেখা যেত তাদের একসাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। তাহলে তারপর বিচ্ছেদ কেন। এই বিষয়টি অনেক ভক্ত রায় মানতে চাচ্ছে না। তার বন্ধুরা বলেছে বিচ্ছেদ অবশ্য ছিল ধানুষ ঐশ্বরিয়ার। একথায় বলেছে তাদের ঘনিষ্ঠ লোকজন।

তামিল সুপারস্টার দানুষ 2004 সালে মহা ধুমধামের সাথে দক্ষিণের সুপারস্টার রজনীকান্তের মেয়েকে বিয়ে করে। তাদের 18 বছরের ক্যারিয়ারে 17 জানুয়ারি তাদের সম্পর্কের ইতি টানে। এই ইতি টানার পরে তাদের নানা জল্পনা-কল্পনা উঠে আসে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায়। একথা অনেক ভক্তরা এখনও বিশ্বাস করতে পারছে না। কিছুদিন আগে আবার তামিল অভিনেতা কমল হাসানের মেয়ে শ্রুতি হাসানের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক ছিল এই কথাটি সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন উঠেছিল। কিন্তু এই কথাটি তেমন কোনো সাড়া পায়নি ভক্তদের কাছে।

কিন্তু আবার অনেকেই বলতেছে যে তাদের জীবনে দুজনের পছন্দ-অপছন্দের অনেক অমিল ছিল এবং তাদের ব্যস্ততার কারণেই তারা বিচ্ছেদ হয়েছে। তবে এই কথাটির কোনো সত্যতা এখনো পাওয়া যায়নি। আবার অনেকেই বলে পরপর ছবিতে কাজ করার কারণে ঐশ্বরিয়াকে ঠিকমতো সময় দিতে পারেননি তিনি। যার ফলে তাদের মধ্যে একটি ফারাক সৃষ্টি হয় এবং সেখান থেকে তারা সংসারের ইতি টানে।

নাম গোপন রাখার শর্তে তাদের এক বন্ধু সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, কোভিড ও লকডাউনে ঘরবন্দি থাকাকালীন নিজেদের দাম্পত্য সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে নতুন করে ভাবনাচিন্তার সুযোগ পেয়েছিলেন তারকা-দম্পতি। ধানুশের কাজের ব্যস্ততার পাশাপাশি দাম্পত্যের প্রয়োজনীয়তা আর অনুভব করছিলেন না ঐশ্বরিয়াও।

আরো সোনা যাচ্ছে মানুষের বয়স 38 এবং ঐশ্বরিয়ার বয়স ছিল 40। এ নিউ জামা হয়েছে তাদের মধ্যে তবে প্রথম দিকে তারা মানে নিতে পারলে শেষের দিকে তারা মানতে পারেনি যার ফলে বা এই সমস্যাটির কারণে তারা ইতি টেনেছেন সংসারে।