health tips

ওজন কমানোর টিপস-ওজন কমাতে শসার ভূমিকা

আমাদের দেশে অনেক মানুষ আছে যারা অধিক স্বাস্থ্যের অধিকারী।তারা বিভিন্ন ধরনের ফাস্টফুড তেল জাতীয় খাবার চর্বিজাতীয় খাবার খেয়ে তাদের শরীরে অত্যধিক ওজন বৃদ্ধি করেছে।যখন দেখে তাদের শারীরিক অবস্থা অনেক খারাপ তখন তারা বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ায় ওজন কমানোর টিপস খোঁজে। তো আজকে আপনাদের সাথে ওজন কমানোর টিপস সম্পর্কে কিছু শেয়ার করবো। আশা করি এই ওজন কমানোর টিপস গুলো আপনাদের কাজে লাগবে। পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

ওজন কমানোর টিপস

এখন আমি যে আপনাদের সাথে ওজন কমানোর টিপস সম্পর্কে আলোচনা করব সেগুলো অবশ্যই বাসায় চেষ্টা করবেন। কারণ আপনি যদি এগুলো বাসায় চেষ্টা না করেন তাহলে আপনার আসানোরূপ ফল পাবেন না।বাজারে বিভিন্ন ধরনের ঔষধ আছে যেগুলো খেলে আপনার শরীর শরীরের ওজন অনেক কমবে কিন্তু এগুলো অনেক সাইড ইফেক্ট আছে। যার কারণে আপনার অনেক বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। তাই আজকে আপনাদের প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন কমানোর টিপস বলবো। সেগুলো হলো।

শরীরচর্চা

আপনাকে প্রতিদিন অনেক ভোরে উঠতে হবে। কারণ আপনারা যদি শরীরচর্চা না করেন তাহলে আপনি কখনই আপনার ওজন কমাতে পারবেন না।আপনারা যত ধরনের ঔষধ খান বা খাবার খান আপনি যদি রেগুলার শরীরচর্চা না করেন তাহলে কোন অবস্থাতে আপনার শরীরের মেদ কমবে না।আপনার শরীরের ওজন কমাতে হলে আপনাকে রেগুলার এক কিলোমিটার রাস্তা হাঁটতে হবে কিংবা দৌড়াতে হবে। দৌড়ানো শেষে আপনি যখন বাসায় ফিরবেন তখন আপনাকে কিছু ক্যালরিযুক্ত খাবার খেতে হবে। কারণ আপনি শরীরচর্চা করার যে পরিমাণ এনার্জি খরচ করেছেন সেগুলো আপনার নিতে হবে। না হলে আপনার শরীর অসুস্থ হয়ে পড়বে। এর জন্য প্রতিদিন সকালে শরীরচর্চা শেষে আপনাকে একটি কচি ডাব, কিছু ছোলা ভেজানো অবস্থা, আর দুটি খেজুর খেতে হবে।

ওজন কমাতে শসার ভূমিকা

ওজন কমানোর টিপস

শরীরের ওজন কমাতে শসার ভূমিকা অনস্বীকার্য। আমরা সবাই জানি যে শসা খুব দ্রুত শরীরের ফ্যাট কমায়। আপনি যদি প্রতিদিন দুপুরে দুটি করে শসা একমাস খান তাহলে আপনি নিজেই আপনার পরিবর্তন লক্ষ করতে পারবেন। এটি আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে প্রমাণিত। কারণ শসা খেলে আপনার শরীরের যত অতিরিক্ত চর্বি আছে সেগুলো কমে যায়। এবং খুব দ্রুত আপনার শরীরকে একটি সুঠাম দেহের অধিকারী করে তোলে। তার জন্য আমি আপনাদের সাজেস্ট করব আপনি প্রতিদিন দুপুরে দুটি করে শসা খাবেন।

ভেজস চায়ের উপকারিতা

আমরা জানি যে গ্রিন টি খেলে শরীরের ওজন কমে যায়। কথাটি সত্য কিন্তু আমরা অনেকেই আছি যারা এই গ্রিন টি খুঁজে পাইনা কিংবা গ্রিন টি কেনার মত সাধ্য নেই। তাদের জন্য আজকে এমন একটি ভেষজ চা এর গুনাগুন সম্পর্কে বলব যে আপনারা হাতের নাগালে পেয়ে যাবেন। সেগুলো হলো একটি এলাচ একটি লবঙ্গ কিছু দারচিনি একটি পুদিনা পাতার কান্ড এবং একটি তুলসী পাতার কান্ড মিশিয়ে পানির সাথে গরম করবেন। আপনার যত টুকু প্রয়োজন ঠিক ততটুকুই পানি গরম করবেন। তারপর সেই মিশ্রিত পানি ছেঁকে যে ভেজস চা বের হবে তা প্রতিদিন সকালে বাসি পেটে খাবে। এভাবে প্রতিদিন খান আপনি অনেক উপকারী তা পাবেন।

লেবু পানি খেয়ে ওজন কমানোর টিপস

লেবু খুব গুণাগুণ সম্পন্ন একটি ফল।লেবুর মধ্যে অনেক ধরনের গুনাগুন রয়েছে যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী।তার মধ্যে একটি হলো আমাদের শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এটি খুব সাহায্য করে।আপনি প্রতিদিন এক গ্লাস গরম পানির সাথে একটি লেবুর রস মিশিয়ে একমাস খাবেন।এর কার্যকারিতা আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার শরীরের অতিরিক্ত চর্বি কেটে যাবে। শরীরের অতিরিক্ত চর্বি কাটতে লেবু ভূমিকা প্রচুর। শুধু চর্বি কমাতে লেবুর প্রয়োজনীয়তা তা নয়। আপনার শরীরের বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধি কমাতেও এর ভূমিকা রয়েছে। যেমন ভিটামিন সি’র অভাবে স্কার্ভি রোগ হয়। আপনি যদি প্রতিদিন লেবু পানি খান তাহলে আপনি এর থেকে মুক্তি পাবেন।

এছাড়া আপনাকে প্রতিদিন বেশি বেশি শাকসবজি খেতে হবে। শ্বাস জাতীয় খাবার বেশি বেশি খেতে হবে। অত্যাধিক চর্বিজাতীয় খাবার খাওয়া যাবেনা। ভাত কম খেতে হবে। রাতে বেশিরভাগ সময় যদি আটার রুটি খাওয়া সম্ভব হয় তাহলে সেটা অনেক ভালো।

সর্বশেষে একটি কথাই বলবো আপনি যদি আপনার শরীরের অধিক ওজন কমাতে চান তাহলে আপনাকে প্রতিদিন ব্যায়াম করতে হবে এবং চর্বি জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে। বেশি বেশি সবুজ শাকসবজি খেতে হবে।আপনি যদি এগুলো নিয়ম মেনে না চলেন তাহলে আপনি কোন দিনই আপনার শরীরের অধিক ওজন কমাতে পারবেন।

আরো পড়ুন:

রবি ইন্টারনেট অফার ২০২১